আপডেট নিউজ লাইভ

প্রথম মেট্রোরেল চালাবেন, নারী চাকল

লেখক:
প্রকাশ: 1 month ago

Spread the love

মেট্রোরেল উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের গণপরিবহনে নতুন যুগের সূচনা হচ্ছে আগামীকাল বুধবার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল বেলা ১১টায় শেরেবাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মেট্রোরেলের উদ্বোধন করবেন। এরপর তিনি আগারগাঁও স্টেশন থেকে মেট্রোরেলে চড়ে উত্তরায় যাবেন। প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে যে মেট্রোরেলটি উত্তরায় যাবে, সেটির চালকের আসনে থাকবেন একজন নারী। তিনি মরিয়ম আফিজা। ‘ট্রেন অপারেটর’ হিসেবে নিয়োগ দিয়ে মেট্রোরেল চালানোর জন্য কয়েক মাস ধরে প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রস্তুত করা হয়েছে তাঁকে।

ট্রেন অপারেটরদের পাশাপাশি ‘স্টেশন কন্ট্রোলার’ও মেট্রোরেল চালাবেন। তবে তাঁদের মূল দায়িত্ব থাকবে স্টেশন থেকে ট্রেন পরিচালনায় যুক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে সমন্বয় করা। এই পদেও একজন নারী রয়েছেন। তাঁর নাম আসমা আক্তার। তাঁকেও কয়েক মাসের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

মরিয়ম ও আসমা প্রথমে চট্টগ্রামের হালিশহরে বাংলাদেশ রেলওয়ের ট্রেনিং একাডেমিতে দুই মাসের প্রশিক্ষণ নেন। ঢাকায় ফিরে আরও চার প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় তাঁদের। সেখানে মেট্রোরেলের দেন। এরপর তাঁরা দিল্লি মেট্রোরেল একাডেমিতে প্রশিক্ষণ নেন। এবং ঢাকায় এসে আরো চার মাস প্রশিক্ষণ নেন তাঁরা। উত্তরার দিয়াবাড়িতে মেট্রোরেলের ডিপোতে কারিগরি ও প্রায়োগিক নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জাপানের মিতসুবিশি- কাওয়াসাকি কোম্পানির বিশেষজ্ঞরা ট্রেন পরিচালনার কারিগরি ও প্রায়োগিক নানা প্রশিক্ষণ।

মরিয়ম আফিজা নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর করেছেন কেমিস্ট্রি অ্যান্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে। লক্ষ্মীপুরের মেয়ে মরিয়ম নিয়োগ পেয়েছেন গত বছরের ২ নভেম্বর। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, মেট্রোরেল বাংলাদেশে প্রথম। এই চাকরির জন্য আবেদন স্বপ্ন। আমি নিজে ট্রেন চালাব—এটা ভেবে এখনই বেশ আনন্দ লাগছে। পশিক্ষণ করেছিলেন আগ্রহ থেকেই। তিনি বলেন, ‘মেট্রোরেল অনেকের মতো আমার কাছেও একটা স্বপ্ন। আমি নিজে ট্রেন চালাব—এটা ভেবে এখনই বেশ আনন্দ লাগছে।

আসমা আক্তার রাজধানীর তিতুমীর কলেজ থেকে
পদার্থবিজ্ঞানে স্নাতক করেন। স্টেশন কন্ট্রোলার পদে নিয়োগ পান ২০১৯ সালের ২১ আগস্ট। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘পত্রিকায় চাকরির বিজ্ঞাপন দেখে একটা চাকরি করব—শুধু এটা ভেবেই এখানে আসিনি। মেট্রোরেল-ব্যবস্থার প্রতি একটা প্যাশনও কাজ করেছে। এ জন্য প্রশিক্ষণে মেট্রোরেলের খুঁটিনাটি সবই রপ্ত করার চেষ্টা করেছি।’ তিনি বলেন, ‘আমার পদ স্টেশন কন্ট্রোলার হলেও ট্রেন চালাতে হতে পারে। এটা আসলেই একটা রোমাঞ্চকর ব্যাপার।

মেট্রোরেল প্রকল্পে অর্থায়ন করছে জাপান সরকারের উন্নয়ন সংস্থা জাইকা। প্রকল্পের মূল কাজ শুরু হয় ২০১৭ সালের আগস্টে। উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেলের দৈর্ঘ্য ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার। এর মধ্যে উত্তরা-আগারগাঁও অংশের উদ্বোধন হচ্ছে আগামীকাল। এই পথে নয়টি স্টেশন আছে। আগারগাঁও-মতিঝিল অংশে ট্রেন চালু হতে পারে আগামী বছরের ডিসেম্বরে। এই পথে স্টেশনের সংখ্যা ৭।