আপডেট নিউজ লাইভ

ভোলায় ১১ লাখ লিটার জ্বালানি তেল নিয়ে ডুবল জাহাজ, ছড়াচ্ছে মেঘনায়

লেখক: রাশেদ মাহমুদ, ভোলা প্রতিনিধী।।
প্রকাশ: 1 month ago

Spread the love

জাহাজের স্টাফরা দাবি করেন, জাহাজে প্রায় নয় কোটি টাকার তেল ছিল।

ভোলায় দুটি যানবাহনের মুখোমুখি সংঘর্ষের পর একটি তেলবাহী জাহাজ ডুবে গেছে। জাহাজের স্টাফদের নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে।

ছবিঃ আপডেট নিউজ লাইভ

রোববার ভোর ৪টার দিকে সদর উপজেলার কাঠিরমাথা এলাকার মেঘনা নদীতে ‘সাগর নন্দিনী-২’ নামে তেলবাহী জাহাজটি ডুবে যায় বলে কোস্ট গার্ড দক্ষিণ জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা কে এম শাফিউল কিঞ্জল জানান।

তিনি আরও বলেন, “জাহাজটিতে আট লাখ ৯৮ হাজার ৪৯৬ লিটার পেট্রোল এবং দুই লাখ ৩৪ হাজার ৪৫২ লিটার অকটেন ছিল।

জাহাজ থেকে জ্বালানি তেল মেঘনা নদীতে ছড়িয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় জেলেরা।

উদ্ধার হওয়া জাহাজের একজন স্টাফ (80) সাংবাদিকদের বলেন, “শনিবার চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ১১ লাখ লিটারের বেশি পেট্রোল ও ডিজেল লোড করে জাহাজটি চাঁদপুরের উদ্দেশে রওনা হয়। সারা পথ আমরা ভাল আসি। তুলাতুলির কাছে আসার পরে রাতে হঠাৎ কুয়াশা পড়ে। কুয়াশার কারণে আমরা গতি কমিয়ে দেই। তখন আরেকটা জাহাজ আমাদের জাহাজের ইঞ্জিন রুমের পাশে ধাক্কা দেয়। ওই জাহাজটির মাথা আমাদের ইঞ্জিন রুমের পাশে লাগে।

“তখন সেখানে ক্ষত হয়ে যায় এবং পানি ঢুকতে শুরু করে। পানি ঢুকতে ঢুকতে একসময় আমাদের জাহাজটি তলিয়ে যায়। তখন আমরা চিৎকার শুরু করি। কেউ আমাদের উদ্ধার করে না। একপর্যায়ে একটি লোড বলগেট আইস্যা আমাদের উদ্ধার করে।

জাহাজের তেল নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করে আরেকজন স্টাফ (৪৫) বলেন, “জাহাজ দুর্ঘটনার পরে তেল সব জেলেরা নিয়ে গেছে। আমরা জাহাজে ছিলাম ১৩ জন। আমরারে একটা বালুর ট্রলার আইস্যা উদ্ধার করে। ইনশাল্লাহ আমরা সবাই সুস্থ আছি।

ছবিঃ আপডেট নিউজ লাইভ

কোস্ট গার্ড কর্মকর্তা কে এম শাফিউল কিঞ্জল বলেন, খবর পেয়ে তারা সকালের দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছান। জাহাজের স্টাফদের তীরে নিয়ে আসা হয়েছে। স্থানীয়রা তেল নেওয়ার চেষ্টা করলে কোস্ট গার্ডের উপস্থিতি টের পেয়ে সবাই সরে যায়। জাহাজটিকে উদ্ধারে চেষ্টা করা হচ্ছে।

ভোলার ইলিশা নৌ-পুলিশ থানার ইনচার্জ মো. আকতার হোসেন জানান, নৌ-পুলিশ ও কোস্ট গার্ড মেঘনা নদী থেকে ডিজেল অপসারণের চেষ্টা করছে।